Home অপরাধ একই পরিবারের হাতে খুন হন মাসুম,মিয়াদ,তানিম!

একই পরিবারের হাতে খুন হন মাসুম,মিয়াদ,তানিম!

by jonoterdak24
0 comment

স্টাফ রিপোর্টার:: মাসুম,মিয়াদ,তানিমের খুনীরা আজাদ গ্রুপের রাজনীতির সাথে জড়িত বলে জানায় নিহতদের স্বজনরা।কাউন্সিলর আজাদ গ্রুপের হাতে ৪ মাসে খুন হয়েছেন ৩ ছাত্রলীগ নেতা। বিগত ৪ মাসের মধ্যে টিলাগড় কেন্দ্রীক ছাত্রলীগের গ্রুপিং রাজনীতির বলি হতে হয়েছে তিন জন ছাত্রলীগ কর্মীকে।
নিহতরা হচ্ছেন জাকারিয়া মোহাম্মদ মাসুম, ওমর আহমদ মিয়াদ ও সর্বশেষ তানিম খান। এর মধ্যে মাসুম ছিলেন ছাত্রলীগের সুরমা গ্রুপের কর্মী হামলাকারীরা সরাসরি টিলাগড় কেন্দ্রীক কাউন্সিলর আজাদ গ্রুপের ছাত্র রাজনীতির সাথে জড়িত।
এর আগে গত ১৬ অক্টোবর প্রকাশ্যে দিবালোকে কুপিয়ে হত্যা করা হয় ছাত্রলীগের হিরন মাহমুদ নিপু গ্রুপের সক্রিয় কর্মী এমসি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা ওমর আহমদ মিয়াদকে। আর রবিবার (০৭ জানুয়ারি) রাত ৯ টার দিকে টিলাগড়েই নিভলো তানিম খান (২২) নামের আরেক ছাত্রলীগ কর্মীর জীবন প্রদীপ। তানিম খান টিলাগড়কেন্দ্রীক রঞ্জিত সরকার গ্রুপের কর্মী। এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক জাকির হোসেন (২৫) নামের এক ছাত্রলীগ কর্মীকে আটক করেছে শাহপরাণ থানা পুলিশ এবং রুহেল নামে আরেক জনকে আটক করে জনতা পুলিশে দিয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন-রোববার রাত পৌনে নয়টার দিকে টিলাগড় পয়েন্টে দাঁড়িয়ে ছিলেন তানিম। এসময় আজাদ গ্রুপের ছাত্রলীগ কর্মীরা তার উপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে পালিয়ে যায়।
সেখান থেকে স্হানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ওসমানী হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, তার শরীরে একাধিক স্থানে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে। নিহত তানিম খানের গ্রামের বাড়ি ওসমানীনগর উপজেলার বুরুঙ্গা ইউনিয়নের নিজ বুরুঙ্গা গ্রামে। তার বাবার নাম ইসরাইল খান। সে টিলাগড়ে একটি মেসে থাকত।
এর আগে গত ১৬ অক্টোবর প্রকাশ্য দিবালোকে টিলাগড় মসজিদ সংলগ্ন কাউন্সিলর আজাদের অফিসের সামনে, আজাদ গ্রুপের ছাত্রলীগের ক্যাডারদের হাতে খুন হন ছাত্রলীগ কর্মী ওমর আহমদ মিয়াদ। নিহত মিয়াদ সিলেট এমসি কলেজে বিএসএস এবং লিডিং ইউনিভার্সিটিতে আইন বিষয়ের ছাত্র ছিলেন। ওই দিন বেলা ৩টার দিকে প্রকাশ্যেই ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় তোফায়েল নামের এক ছাত্রলীগ কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি বর্তমানে কারাগারে আছেন। মিয়াদের বাবার করা মামলায় জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এম রায়হান চৌধুরীকে প্রধান আসামী করা হয়। এরপর কেন্দ্রের এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে বাতিল করা হয় সিলেট জেলা ছাত্রলীগের কমিটি।
এর আগে গত ১৪ সেপ্টেম্বর বিকালে শিবগঞ্জে জাকারিয়া অহমদ মাসুমের উপর হামলা চালিয়ে খুন করা হয় মাসুমকে,হামলাকারী মাহিন ও তার সঙ্গীরা টিলাগড়কেন্দ্রীক ছাত্ররাজনীতির সাথে জড়িত। মাহিন ও তার সঙ্গীরা মাসুমকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করে ফেলে গিয়েছিল। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সেখানে তার মৃত্যু হয়। নিহত মাসুম সুনামগঞ্জ জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার শান্তিগঞ্জের মাসুক মিয়ার ছেলে। তিনি সুরমা গ্র“পের কর্মী। হামলাকারী মাহিন ছাত্রলীগের কাউন্সিলর আজাদ ও টিটু-ডায়মন্ড গ্র“পের কর্মী বলে জানা যায়।

Related Posts

Leave a Comment


cheap jerseyscheap jerseyscheap nfl jerseyscheap jerseys from chinacheap mlb jerseyscheap nhl jerseyscheap jerseyscheap nfl jerseyscheap mlb jerseyscheap nfl jerseys