Home সারাদেশ কোটি টাকার ঘুষ বাণিজ্যে, গোয়াইনঘাট যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার

কোটি টাকার ঘুষ বাণিজ্যে, গোয়াইনঘাট যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার

by jonoterdak24
0 comment

জসিম উদ্দিন: শিক্ষিত বেকার যুবক যুবতীদের কর্মসংস্হান সৃষ্টির লক্ষ্যে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মহৎ উদ্যোগ(ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচি ৪র্থ পর্যায়) কে কলুষিত করছেন গোয়াইনঘাটের যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা আজহারুল কবির । সরকারের বিধি মোতাবেক ছেলে/মেয়েদের শিক্ষাগত যোগ্যতা এইচ,এস,সি পাশের বিধান থাকলেও গোয়াইনঘাটের যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা সরকারের বিধি বিধানকে বৃদ্ধাঙ্গুলী প্রদর্শন করে উৎকুচ গ্রহনের মাধ্যমে একটি স্বার্থনেশ্বী মহলকে সুবিধা দিতে নিজেরমত করে অল্প শিক্ষিত ৮ম শ্রেণি পাশ যুবক-যুবতীদেরকে অস্থায়ী ভাবে চাকুরী দিয়েছেন। যাহা সরজমিন কথা বলে নিয়োগ প্রাপ্তদের কাছ থেকেই এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া যায়। স্থানীয় ও চাকুরী প্রার্থীদের কাছ থেকে আরও জানা যায় শুধুমাত্র গোয়াইনঘাট উপজেলায় প্রায় ১হাজার ৫শত জনকে নিয়োগ দেওয়ার কথা থাকলেও ৮ই মে ২০১৬ইং পর্যন্ত নিয়োগ দেওয়া হয়েছে ১হাজার ৩ শত ৯৭জনকে,এখনও প্রায় ১শত ৩ জনকে নিয়োগ দেওয়ার বাকী আছে। নিয়োগ প্রাপ্তদের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান নেই বল্লেই চলে। গত ০৮/১২/২০১৫ইং তারিখের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি যাহার স্বারক নং-৩৪.০১. ০০০০.০২৯.৩৭.০০৪.০৯-৫২০ অনুযায়ী চাকুরী প্রার্থীদের বয়স ২৪-৩৫ বছর এবং শিক্ষাগত যোগ্যতা উচ্চ মাধ্যমিক পাশ হওয়ার কথা থাকলেও বেশীরবাগ চাকুরী প্রাপ্তদের বয়স ২৪বছরের নিচে এবং শিক্ষাগত যোগ্যতাও উচ্চ মাধ্যমিকের নিচে। স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা এবং তাদের সন্তানদের সাথে কথা বলে আরও জানা যায় ইতিমধ্যে যাদের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে তাদের প্রত্যেকের কাছ থেকে ১০হাজার/২০হাজার টাকা নিয়ে চাকুরী দেওয়া হয়েছে আর যে সমস্ত যুবক-যুবতী টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন তাদের চাকুরী হয়নী। টাকা দেওয়া থেকে বাদ যাননি মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরাও।ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচি ৪র্থ পর্যায় গোয়াইনঘাট উপজেলায় চাকুরী প্রাপ্তদের ৪০-৬০% জামায়াতে ই্সলাম বাংলাদেশ এর ছাত্র সংগঠন শিবিরের সাথে সংশ্লিষ্ট।গোয়াইনঘাটের যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা আজহারুল কবির অর্থের বিনিময়ে ব্যক্তিগত প্রভাব খাঠিয়ে চাকরি প্রদান করছেন বলে স্থানীয়দের অভিযোগ । এ ব্যাপারে ইতি মধ্যে মহা পরিচালক যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর ঢাকা, বিভাগীয় কমিশনার সিলেট, জেলা প্রশাসক সিলেট, উপ-পরিচালক যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর সিলেট এবং উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা গোয়াইনঘাট বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন গোয়াইনঘাট উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হক এর পুত্র গোলাম সারোয়ার।
সূত্রে জানাযায় যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা নিজে জাল সার্টিফিকেট বানিয়ে অর্থের বিনিময়ে চাকরির নিশ্চয়তা দিচ্ছেন । এ ছাড়াও তাহার বিরোদ্ধে রয়েছে আর অনেক অনিয়মের অভিযোগ, যা বাংলাদেশ সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করছে । বিষয়টি সুষ্ঠভাবে তদন্তের মাধ্যমে এ অসাধু কর্মকর্তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি জানান স্থানীয়রা। এ ব্যাপারে গোয়াইনঘাট উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার ০১৯১৭-৩৪৯৭৩৩ নাম্বার মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে মোবাইল সংযোগটি বন্ধ পাওয়া যায়।

Related Posts

Leave a Comment