Home সারাদেশ ছাতকে সুরমা নদীর পানি দূষণ তদন্তে টালবাহানা

ছাতকে সুরমা নদীর পানি দূষণ তদন্তে টালবাহানা

by jonoterdak24
0 comment

ছাতক প্রতিনিধি, মঙ্গলবার, ০১ মার্চ ২০১৬ :: সুনামগঞ্জের ছাতকে সুরমা নদীর পানি প্রকাশ্যেই দূষিত করছে একটি চক্র। অবৈধভাবে পাথর ভাঙ্গার ওয়াসিং মেশিন ব্যবহার করে নদীর পানি দূষণের বিষয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হলেও এখনো পর্যন্ত দূষণ রোধে কোনো কাজই হয়নি।

পাথর ভাঙ্গার ওয়াসিং মেশিন ব্যবহারের ফলে ধীরে ধীরে ভরাট হয়ে পড়ছে সুরমা নদীর তলদেশ। নদীর মাছও কমে যাচ্ছে দূষণের কারণে। ফলে শত শত মৎস্যজীবী কর্মহীন হয়ে পড়ছেন। দূষিত পানি ব্যবহারের ফলে এলাকা নারী-পূরুষদের নানা চর্ম রোগ দেখা দিচ্ছে।

এ ব্যাপারে স্থানীয় মৎস্যজীবীরা প্রায় এক মাস পূর্বে ছাতক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ করেন। ঐ অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত ১৪ ফেব্র“য়ারি একটি তদন্ত কমিটি করা হলেও এখন পর্যন্ত দূষণ রোধে কার্যকরি কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি। এ বিষয়ে তদন্ত নিয়েও টালবাহানা চলছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ফলে স্থানীয় মৎস্যজীবীসহ স্থানীয় লোকদের মাধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোশ দেখা দিয়েছে।

এদিকে, মঙ্গলবার বিকেলে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে একটি তদন্ত কমিটি নদীর দূষিত পানির নমুনা সংগ্রহ করেছে।

জানা যায়, ছাতক পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের চরেরবন্দ আবাসিক এলাকার প্রায় ৮৫ ভাগ লোকই মৎস্যজীবী হওয়ায় মাছ শিকার করেই তাদের সংসার চালাতে হয়। দীর্ঘ এক বছর ধরে কতিপয় অর্থ লোভী ব্যবসায়ীরা অবৈধভাবে তাতিকোনা থেকে ছাতক সদর ডাকঘর সুরমা নদীর তীরবর্তী এলাকায় পাথর ভাঙ্গার ওয়াসিং মেশিন ব্যবহার করে নদীতে ডাস্ট ফেলায় নদীর নাব্যতা কমে যাচ্ছে।

স্থানীয় মৎস্যজীবী নোমান আলী বলেন, নদীর পানি লাল হয়ে বিষাক্ত হয়ে। আর এ নদীর পানি ব্যবহারের কারণে নারী-শিশুর শরীরে নানা চর্ম রোগ দেখা দিয়েছে।

এ ব্যাপরে ছাতক পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নওশাদ আলী ও সাবেক কাউন্সিলর মাসুক মিয়া জানান, অবৈধ পাথর ভাঙ্গার ওয়াসিং মেশিন ব্যবহারকারীদের সাথে আলোচনা করেও কোন লাভ হয়নি। প্রতিদিনই নদী তীরবর্তী এলাকায় নতুন নতুন মেশিন বসানো হচ্ছে। ফলে ভরাট হয়ে নদীর পানি লাল রং ধারন মারাতœক ভাবে পরিবেশ দূষণ হচ্ছে।

ছাতক উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) হাফিজুর রহমান বলেন, সুরমা নদীর নাব্যতা সংকট ও পরিবেশের জীব বৈচিত্র রক্ষা করা আমাদের সকলের দায়িত্ব। এ ব্যাপারে ব্যবসায়ীদের ডেকে দ্রুত পানি দূষন রক্ষার জন্য ওয়াসিং মেশিন বন্ধের নির্দেশনা দেয়া হবে। তারপরও যদি আইন অমান্য করা হয় তাহলে তাদের বিরুদ্ধে প্রযোজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। –

Related Posts

Leave a Comment


cheap jerseyscheap jerseyscheap nfl jerseyscheap jerseys from chinacheap mlb jerseyscheap nhl jerseyscheap jerseyscheap nfl jerseyscheap mlb jerseyscheap nfl jerseys