Home জাতীয় ছয় দফা দাবিতে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্মরা প্রেসক্লাবে অবস্থান

ছয় দফা দাবিতে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্মরা প্রেসক্লাবে অবস্থান

by jonoterdak24
0 comment

অভিমানে বীর মুক্তিযোদ্ধার রাষ্ট্রীয় সম্মান না নেয়ায় জড়িতদের চাকরিচ্যুত, সাংবিধানিক স্বীকৃতি ও পারিবারিক সুরক্ষা আইনের মাধ্যমে  দেশব্যাপী মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর অব্যাহত নিপীড়ন নির্যাতন বন্ধ এবং মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্মের যোগ্যতা অনুযায়ী চাকরির ব্যবস্থা নিশ্চিতকরণসহ ৬ দফা দাবিতে ১০ম দিনের মত অবস্থান করছে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্মরা।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাব সামনে অবস্থান করে তারা বলেন, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাদের অবস্থান কর্মসূচি চলমান থাকবে। প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করে দাবিগুলো তারা তুলে ধরতে চান। গত ২৮ অক্টোবর থেকে তাদের অবস্থান কর্মসূচি শুরু হয়েছে। প্রতিদিন সকাল ১০টা  থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত তাদের এই অবস্থান অব্যাহত থাকবে।

দিনাজপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল হোসেন কতিপয় প্রশাসনের উপর অভিমানে রাষ্ট্রীয় সম্মান প্রত্যখানের ঘটনায় জড়িতদের চাকরিচ্যুত এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চায় তারা। অবস্থান কর্মসূচিতে রয়েছেন- এস এম  তোফায়েল আহমদ, সোহাগ, রানা, আরফান, জাভেদ, জাকির  হোসেন,অনু, মনির, ঊর্মি কিবরিয়া প্রমুখ।

অবস্থান কর্মসুচীতে অংশ নিয়ে অহিদুল ইসলাম তুষার বলেন, যারা জীবন বাজি রেখে দেশটা স্বাধীন করলো, তাদের সাথে এটা কোন ধরণের আচরণ! যে অকৃতজ্ঞ জাতি দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তানদের সম্মান দিতে জানেনা, তারা স্বাধীনতার স্বাদ গ্রহণ করার যোগ্যতা রাখে না। এমনকি মুক্তিযোদ্ধাদের অর্জিত এই দেশের প্রশাসনিক কোনো কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করার কোনো অধিকার তাদের নেই।

৬ দফা সমূহ:
দিনাজপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল হোসেনের পরিবারের সাথে অসদাচরণ, সন্তানকে চাকরিচ্যুত এবং পরিবারকে বাস্তুচ্যুত করার অপরাধে, দিনাজপুর সদরের-সহকারী কমিশনার (ভূমি) আরিফুল, এডিসি(রাজস্ব) ও জেলা প্রশাসকসহ জড়িতদের বিচার বিভাগীয় তদন্ত সাপেক্ষে চাকরিচ্যুত এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে, ভুক্তভোগী পরিবারের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে, বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম ইসমাইল হোসেনের পরিবারের আবাসন এবং আর্থিক ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে।

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সাংবিধানিক স্বীকৃতি, পারিবারিক সুরক্ষা আইন এবং মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের উপর অব্যাহত নিপীড়ন নির্যাতন বন্ধে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে।

যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও হাজার হাজার মুক্তিযোদ্ধার সন্তান বেকার। বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যদের যোগ্যতা অনুযায়ী অবশ্যই চাকরি ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। প্রশাসন এবং নিয়োগবোর্ড থেকে মুক্তিযোদ্ধা পরিবার বিরোধীদেরকে ছাটাই করতে হবে।

Related Posts

Leave a Comment


cheap jerseyscheap jerseyscheap nfl jerseyscheap jerseys from chinacheap mlb jerseyscheap nhl jerseyscheap jerseyscheap nfl jerseyscheap mlb jerseyscheap nfl jerseys