Home সিলেট বিভাগ তাহিরপুরে তলিয়ে গেছে ৮ টি হাওরের কাঁচা ধান

তাহিরপুরে তলিয়ে গেছে ৮ টি হাওরের কাঁচা ধান

by jonoterdak24
0 comment

তাহিরপুর
তাহিরপুরে পাহাড়ি ঢলের পানিতে হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধ ভেঙ্গে তলিয়ে গেছে ৮ টি হাওরের ৫ হাজার হেক্টর বোর জমির কাঁচা ধান। অরক্ষিত শনি ও মাটিয়ান হাওরে স্বেচ্ছাশ্রমে কাজ করছে হাওরপাড়ের কৃষকরা। ডুবে যাওয়া হাওরগুলো হলো মহালিয়া, বলদা, গনিয়াকুড়ি, সন্যাসী, মিথ্যারডুবা, লোবা, গুলাঘাট ও গুরমা বর্ধিতাংশের ছনার হাওর। শনিবার রাত ও রবিবার এ সংবাদ লিখা পর্যন্ত প্রবল পানির তুড়ে উল্লেখিত হাওরগুলোর ফসল রক্ষা বাঁধ ভেঙ্গে যায়। অপরদিকে রবিবার সকাল থেকে তাহিরপুরে হাট বাজার বন্ধ রেখে হাওরপারের কৃষক দোকানদার সকলেই সকাল থেকেই শনি ও মাটিয়ান হাওরে বেড়ি বাঁধগুলোতে দিনব্যাপী স্বেচ্ছাশ্রম দিয়েছেন। বিভিন্ন গ্রামের মসজিদ থেকে মাইকিং করে ষোষণা আসছে হাওরের অবস্থান ভাল নয় দোকান পাট বন্ধ রেখে দ্রুত বাঁধের কাজে চলে যান। সরজমিন ঘুরে দেখা যায়, শনির হাওরের নান্টুখালি, ঝালখালি, লালুর গোয়ালা, বগিয়ানা আপর বাঁধ, সাহেবনগর বাঁধ, আহাম্মককালি বাঁধ, শ্রীপুর বেড়ি বাঁধ, টাকটুকিয়া, বড়দল মেশিন বাড়ি আপর
বাঁধ, আলমখালি, উমেদপুর বাঁধ, ছিরারগায়ের বাঁধ, বোয়ালমারা ক্লোজার বাঁধ, নান্দিয়া বাঁধ সহ বিভিন্ন বাঁধে ৩ সহ¯্রাধিক লোকজন কাজ করছেন। যে বাঁধগুলোতে ঠিকাদার ও পিআইসি যথাসময়ে কাজ করার কথা আজ সে বাঁধগুলোতে স্বেচ্ছাশ্রমে কাজ করে বোরো ফসল রক্ষার প্রাণপণ চেষ্টা করছেন দুই হাওরপাড়ের কৃষক, শ্রমিক সহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার লোকজন। অরক্ষিত দুই হাওর শনি ও মাটিয়ান সহ ডুবে যাওয়া হাওরগুলোর কোন বাঁধে ঠিকাদার ও পিআইসি যথাসময়ে মাটি কাটেনি। বাঁধে সঠিক সময়ে মাটি না কাটা ও কিছু বাঁধে পরিমাপ মত মাটি না কাটায় হাওরে হাওরে আজ সামান্য পানিতে বাঁধ হুমকিতে পড়েছে এবং সামান্য পানিতে তলিয়ে যোচ্ছে।
রবিবার অরক্ষিত দু‘হাওর শনি ও মাটিয়ান এবং ডুবে যাওয়া ৮টি হাওর সরেজমিন ঘুরে দেখেন তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কমারুজ্জামান কামরুল, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আবুল হোসেন খান, সাধারণ সস্পাদক অমল কান্তি কর, উপজেলা যুবলীগ আহবায়ক হাফিজ উদ্দিন, উপজেলা কৃষকলীগ আহবায়ক অনুপম রায় সহ অন্যান্য রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ।
উপজেলার মধ্য তাহিরপুর গ্রামের কৃষক রঞ্জু মুখার্জি বলেন, সুনামগঞ্জের পাউবোর একটি সিন্ডিকেট হাওরের কাজ ভাগাভাগি করে নিয়ে গেছে। তাঁরা ব্াঁধে কোন কাজ করেনি। আমরা এখন স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁধে কাজ করছি। কিন্তু বিল উত্তোলন করবে ঐ সিন্ডিকেট চক্র। তারা যাতে ভুয়া বিল তুলতে না পারে সে জন্য তিনি সরকারের কাছে দাবি জানান।
বলদা হাওরপারের কৃষক সাবেক ইউপি সদস্য দ্বীন ইসলাম বলেন, শনিবার দিনব্যাপী লোকজন নিয়ে বলদা হাওরের ধরুন্দ বাঁধটিতে কাজ করেছি কিন্তু বাঁধটি শেষ পর্যন্ত রক্ষা করা গেল না। রবিবার ভোরে বাঁধটি ভেঙ্গে যায়।
উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান খসরুল আলম বলেন, নজরখালি, গনিয়া কুড়ি, সন্যাসী সহ কয়েকটি হাওরে হাওর রক্ষা বাঁধ ভেঙ্গে হাওরে পানি প্রবেশ করছে।
তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, মানুষ বিভিন্ন বাঁধে স্বেচ্ছাশ্রমে কাজ করছে। ঠিকাদারদের মোবাইলে ফোন দিয়েও পাওয়া যাচ্ছে না।
তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল জানান, হাওরপাড়ের কৃষকরা স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁেধ কাজ করছে। আমরা তাদের সামান্য বাঁশ, বস্তা দিয়ে সাহায্য করছি। ঠিকাদার ও পিআইসি যথাসময়ে বাঁেধ কাজ করলে হাওরের আজ এ অবস্থা হতো না।

Related Posts

Leave a Comment


cheap jerseyscheap jerseyscheap nfl jerseyscheap jerseys from chinacheap mlb jerseyscheap nhl jerseyscheap jerseyscheap nfl jerseyscheap mlb jerseyscheap nfl jerseys