Home সারাদেশ দাবি না মানলে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা প্রত্যাখ্যানের ঘোষণা মুক্তিযোদ্ধাদের

দাবি না মানলে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা প্রত্যাখ্যানের ঘোষণা মুক্তিযোদ্ধাদের

by jonoterdak24
0 comment

 জনতার ডাক  রিপোর্টঃদিনাজপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করেন মুক্তিযোদ্ধারা

মুক্তিযোদ্ধাকে অপমান এবং অবজ্ঞা করায় দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মাহমুদুল আলমকে ওএসডি করে বদলি করার দাবি জানিয়েছে দিনাজপুরের সব পর্যায়ের মুক্তিযোদ্ধারা। তা না হলে জেলার সব মুক্তিযোদ্ধা রাষ্ট্রীয় মর্যাদা প্রত্যাখ্যান করবেন।

সোমবার দিনাজপুর প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তারা এই ঘোষণা দেন। তারা ১১ দফা দাবি উত্থাপন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সদ্য সাবেক ডেপুটি কমান্ডার সাইদুর রহমান। এ সময় জেলার সর্বস্তরের মুক্তিযোদ্ধারা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে দিনাজপুরে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা ছাড়া দাফন হওয়া সেই অভিমানী মুক্তিযোদ্ধকে অবমাননার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছেন মুক্তিযোদ্ধারা।

দুপুরে দিনাজপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করেন মুক্তিযোদ্ধারা। প্রায় ২ ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন শেষে তারা শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেন।

এ সময় তারা জেলা প্রশাসক মাহমুদুল আলমের ওএসডি করে প্রত্যাহার দাবি করেন। পরে তারা দিনাজপুর প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করেন। যেখানে জেলা প্রশাসককে ওএসডি করে প্রত্যাহারসহ ১১ দফা দাবি উত্থাপন করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযোদ্ধারা বলেন, বর্তমানে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমিটি ভেঙ্গে দেয়া হয়েছে। দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মাহমুদুল আলম জেলা কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করছেন। কিন্তু তিনিই মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে কাজ করছেন।

বর্তমানে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সরকার থাকলেও জেলা প্রশাসক কোনো খুঁটির জোরে মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে কাজ করছেন তা খতিয়ে দেখার দাবি জানানো হয়।

একই সঙ্গে অবিলম্বে জেলা প্রশাসককে দিনাজপুর ওএসডি করে বদলির দাবি জানিয়ে বলা হয়, নইলে দিনাজপুরের সব মুক্তিযোদ্ধার রাষ্ট্রীয় সম্মান প্রত্যাখ্যান করবে এবং বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

দাবির মধ্যে উল্লেখ করা হয়, ভবিষ্যতে মুক্তিযোদ্ধা কিংবা তাদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে এই ধরনের অসদাচরণ করা হবে না এমন নিশ্চয়তার দাবি করেন তারা।

রংপুর বিভাগীয় কমিশনার এসএম তরিকুল ইসলাম বলেন, মুক্তিযোদ্ধাকে অবমাননার ঘটনায় সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আরিফুল ইসলামকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদনের মাধ্যমে এ ঘটনায় জড়িত কেউ থাকলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, ছেলেকে চাকরিচ্যুৎ ও বাস্তুচ্যুৎ করার ক্ষোভে দাফনের সময় রাষ্ট্রীয় মর্যাদা চাননি অভিমানী মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল হোসেন। মৃত্যুর দুই দিন আগে নিজের ক্ষোভ-দুঃখের কথাগুলো লিখে রেখে যান স্বজনদের কাছে। বুধবার বেলা ১১টায় মারা গেলে পরদিন বৃহস্পতিবার ইসমাইল হোসেনকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা ছাড়াই দাফন করা হয়।

Related Posts

Leave a Comment


cheap jerseyscheap jerseyscheap nfl jerseyscheap jerseys from chinacheap mlb jerseyscheap nhl jerseyscheap jerseyscheap nfl jerseyscheap mlb jerseyscheap nfl jerseys