Home সিলেট বিভাগ ফেঞ্চুগঞ্জে রাতের আধারে ড্রেজারে বালু উত্তোলন,নিরব প্রশাসন

ফেঞ্চুগঞ্জে রাতের আধারে ড্রেজারে বালু উত্তোলন,নিরব প্রশাসন

by jonoterdak24
0 comment

ফেঞ্চুগঞ্জ প্রতিনিধি :: ঘড়িতে তখন রাত প্রায় দুইটা। নদীতে ড্রেজারের বিকট শব্দে জেগে উঠলেন গ্রামবাসী। ফেঞ্চুগঞ্জ থানার রাত্রিকালীন টহল দলের সহায়তায় ড্রেজার আটকানো হল। আর এমন করবেন না বলে ছাড়া পান বালুখেকোরা। গত বুধবার (১১ জানুয়ারি) রাতে এমন ঘটনা ফেঞ্চুগঞ্জ ৯০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্রের পাশে গুচ্চগ্রামে।

বালুখেকোরা সেখান থেকে চলে গেলেও তাদের অবৈধ ব্যবসা বন্ধ হয়নি। পরের দিন অর্থাৎ বৃহস্পতিবার রাতে ড্রেজার চালানো হয় ফেঞ্চুগঞ্জ ভেলকুনা চরে। রাতভর বালু তোলা হয়েছে বলে জানান গ্রামবাসীরা। এরকম বালুখেকো চক্রের হাত থেকে মুক্তি মিলছে না।

গ্রামবাসী বললেন মরা গাঙে ড্রেজার দিয়ে বালু তোলার ফলে নদীর পার ভেঙ্গে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে মানিককোনা, গয়াসি, সুলতানপুর, গঙ্গাপুর এলাকায়। নদী ভাঙ্গনের শিকার হয়েছে ফেঞ্চুগঞ্জ-মানিকগঞ্জের এক মাত্র সড়ক। ঝুঁকিতে আছে স্কুল-মাদ্রাসাসহ বসত বাড়ি। কিন্তু কাদের আগ্রাসন আর সহায়তায় এ রাক্ষুসে ড্রেজারের আক্রমন? প্রশ্ন ক্ষতিগ্রস্তদের। প্রশাসনের নাকের ডগায় অবৈধ ড্রেজার চলে কিভাবে?

উত্তর খুঁজতে যোগাযোগ হয় ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার হুরে জান্নাতের সাথে, তিনি বলেন- এ বিষয়ে তিনি অবগত নন, তবে অবৈধভাবে বালু তোলা হলে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

স্থানীয়রা ক্ষোভপ্রকাশ করে বলেন, বালুখেকো চক্রের ক্ষমতা কি সবার উর্ধ্বে? এরা কি আইনের উপরের? তারা রাতের আধারে বালু তুলে গ্রামগুলোকে ভাঙ্গনের মুখে ফেলে দিবে আর কারো করার কিচ্ছু নাই?

ফেঞ্চুগঞ্জ থানার এএসআই মোশারফবলেন, খবর পেয়ে পরশু রাতে বালু তোলার ড্রেজার তাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। খুব দ্রুত এসব বালুখেকো চক্র আটকানো না গেলে প্রবল নদীভাংগনের ঝুঁকিতে পড়বে কয়েকটি গ্রাম

Related Posts

Leave a Comment