Home রাজনীতি বিবাহিতদের নিয়ে বিয়ানীবাজারে ছাত্রদলের পাল্টা কমিটি

বিবাহিতদের নিয়ে বিয়ানীবাজারে ছাত্রদলের পাল্টা কমিটি

by jonoterdak24
0 comment

বিয়ানীবাজার প্রতিনিধি ::বিবাহিতদের নিয়ে পাল্টা কমিটি গঠন করেছে পদবঞ্চিত  বিয়ানীবাজার উপজেলা, পৌর ও কলেজ ছাত্রদলের একাংশ। পদবঞ্চিতদের গঠিত এই পাল্টা কমিটির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ কমিটির বেশিরভাগই বিবাহিত এবং অছাত্র। এছাড়া গঠিত এই কমিটিতে সিনিয়র জুনিয়র নিয়ে দেখা দিয়েছে চরম বিশৃঙ্খলা। ক্ষুদ্ধ ও তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন অনেকেই। তাছাড়া পদবঞ্চিত ও বিদ্রোহীদের প্রস্তাবিত ঐ কমিটিতে জেলা কর্তৃক নবগঠিত কমিটির দায়িত্বশীলদেরকে রাখা হয়েছে বিভিন্ন পদে।

জানা যায়, সোমবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল সিলেট জেলা শাখার সভাপতি সাঈদ আহমদ ও রাহাত চৌধুরী মুন্না এক যৌথ বিবৃতিতে মেয়াদ উত্তীর্ণ বিয়ানীবাজার উপজেলা, পৌর ও কলেজ ছাত্রদলের আহবায়ক কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে উপরোক্ত ইউনিটগুলোর আংশিক পূর্ণাঙ্গ নতুন কমিটি গঠন করেন। নবগঠিত কমিটিতে সদ্য বিলুপ্ত পৌর ছাত্রদলের আহবায়ক ফয়েজ আহমদকে সভাপতি, এনামুল ইসলাম এনামকে সাধারণ সম্পাদক এবং সাহেদ আহমদকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে উপজেলার আংশিক কমিটি, আইনুল আবেদিনকে সভাপতি, আহসান জামিলকে সাধারণ সম্পাদক এবং জাবেদ আহমদকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে পৌর ছাত্রদলের আংশিক কমিটি, ওলিউর রহমান ওলিকে সভাপতি, আক্তার হোসেন লিমনকে সাধারণ সম্পাদক ও ফাহিম আহমদকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে কলেজ ছাত্রদলের আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়।

এই কমিটি ঘোষণার পরের দিন মঙ্গলবার নব ঘোষিত কমিটিকে পকেট কমিটি আখ্যা দিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে পদবঞ্চিতরা এবং এই কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি ঘোষণার দাবি জানান তারা। তবে জেলার নেতৃবৃন্দ ঘোষিত কমিটি কেন্দ্রের নির্দেশে ঘোষণা করা হয়েছে জানালে বিদ্রোহীরা কেন্দ্রের সাথে যোগাযোগ করে ঘোষিত কমিটি বাতিলের দাবী জানান। আর তাদেরকে ইন্ধন দিচ্ছেন উপজেলা বিএনপির দায়িত্বশীলরা, এমন অভিযোগ নতুন কমিটির। তবে তাদের এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে উপজেলা বিএনপি।

এদিকে রবিবার বিয়ানীবাজার উপজেলা ও পৌর বিএনপির সমর্থন নিয়ে পাল্টা কমিটি গঠন করে তা প্রস্তাব আকারে কেন্দ্রে প্রেরণ করেছে উপজেলা ছাত্রদলের বিদ্রোহী গ্রæপ। তাদের দাবী, বিয়ানীবাজারে ছাত্রদলের কমিটি নিয়ম বহির্ভুতভাবে করা হয়েছে। এটি একটি পকেট কমিটি। তাই এই পকেট কমিটির বিরুদ্ধে তারা পাল্টা কমিটি গঠন করে কেন্দ্রে প্রেরণ করেছে। এবিষয়ে প্রস্তাবিত কমিটির উপজেলা সভাপতি ইমদাদুর রহমান ইমন বলেন, টাকার বিনিময়ে বিয়ানীবাজারে ছাত্রদলের তিনটি ইউনিটের পকেট কমিটি করা হয়েছে। এখানে উপজেলা বিএনপির কোন মতামতই নেয়া হয়নি। তাই আমরা উপজেলা ও পৌর বিএনপির সমর্থন নিয়ে এই কমিটি গঠন করেছি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিদ্রোহী কমিটির এক নেতা বলেন, কেন্দ্রে প্রেরণের জন্য উপজেলা ছাত্রদলের তিনটি ইউনিটের যে কমিটি গঠন করা হয়েছে তাতে সিনিয়র-জুনিয়র মানা হয়নি। তাছাড়া ওই কমিটির মূল পদবিধারীরাই বিবাহিত এবং তাদের ছাত্রত্ব নেই। অথচ তারা নিজের ইচ্ছামত মনগড়া কমিটি তৈরী করেছে। যা ছাত্রদলের গঠনতন্ত্রের পরিপন্থি।

ছাত্রদলের বিদ্রোহী কমিটিতে নিজেদের নামের বিষয়ে উপজেলা ছাত্রদলের নবগঠিত কমিটির সভাপতি ফয়েজ আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক এনামুল ইসলাম এনাম বলেন, ছাত্রদল কারো পৈতৃক সম্পত্তি নয় যে যাকে তাকে দিয়ে কমিটি গঠন করা হবে, আর তারা তাদের মনগড়া ভাবে চালাবেন। ছাত্রদল একটি নিয়মতান্ত্রিক ছাত্র সংগঠন। এখানে কেউ নিজের ইচ্ছামত কমিটি গঠন করতে পারে না। যারা বিয়ানীবাজারে ছাত্রদলের তিনটি ইউনিটের কমিটি গঠনের পর থেকে বিদ্রোহ করছেন, তারা আসলে ছাত্রদল সম্পর্কে কিছু জানেন  না, বুঝেনও না। তারা আমাদের নাম তাদের গঠিত কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করে তাদের রাজনৈতিক দেউলিয়াত্বই প্রমাণ করেছে। আমরা আশা করি, তারা তাদের ভুল বুঝতে পেরে আমাদের সাথে এসে ছত্রদলকে ঐক্যবদ্ধ ও শক্তিশালী করার জন্য কাজ করবে।

বিয়ানীবাজারে ছাত্রদলের নবগঠিত কমিটি নিয়ে উপজেলা বিএনপির দ্বিমত ও ছাত্রদলের বিদ্রোহী কমিটির বিষয়ে জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সাঈদ আহমদ বলেন, ছাত্রদল তাদের নিজস্ব গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কমিটি গঠন করে। আমরা কেন্দ্রের নির্দেশ মোতাবেক বিয়ানীবাজার ছাত্রদলের তিন ইউনিটের কমিটি গঠন করেছি। এখানে উপজেলা কিংবা পৌর বিএনপির মতামত নেয়া আমাদের জন্য বাধ্যতামূলক নয়।

তিনি বলেন, জেলা কর্তৃক যে কমিটি গঠন করা হয়েছে সেটাই মূল কমিটি। আর কেউ নিজের ইচ্ছামত কোন কমিটি করলে তাতে আমাদের কিছু যায় আসে না। কারণ তারা দলের কেউ নয়, মূলত এরা বিশৃঙ্খলাকারী

Related Posts

Leave a Comment


cheap jerseyscheap jerseyscheap nfl jerseyscheap jerseys from chinacheap mlb jerseyscheap nhl jerseyscheap jerseyscheap nfl jerseyscheap mlb jerseyscheap nfl jerseys