Home মিডিয়া সম্পত্তি দখলের পায়তারায় প্রবাসী পরিবারকে একাধিক ভূয়া মামলায় হয়রানী

সম্পত্তি দখলের পায়তারায় প্রবাসী পরিবারকে একাধিক ভূয়া মামলায় হয়রানী

by jonoterdak24
0 comment

জনতার ডাক:1মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় ভূ-সম্পত্তির কারণে অসহায় অবস্থায় পড়েছে একটি পরিবার। ভাইকে নিজের নামে বিদেশ পাঠিয়ে নিজের নামে গ্রামের বাড়ির সহায় সম্পত্তি দখল করে জমি জমা আব্দুল আজিজ তার স্ত্রী ও মেয়ের নামে বিভিন্ন ভাবে রেকর্ড করে নেন।

মা-সহ ভাই, বোনদের ভিটেছাড়া করার হীন চেষ্ঠায় আমাদের উপর একের পর এক মামলা ও বসত বাড়িতে হামলা করছেন বলে অভিযোগ করেছেন কুলাউড়া উপজেলার কানেহাত গ্রামের আব্দুল হান্নানের ছেলে সাহেদ আহমদ।

এসব ঘটনায় বিপর্যস্ত পরিবারটি প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করে জড়িতদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবি জানিয়ে বুধবার সিলেট জেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে তারা এ আকুতি জানান।

লিখিত বক্তব্যে সাহেদ আহমদ বলেন, তার পিতা আব্দুল হান্নান প্রবাসে থাকেন। মা-সহ ভাই বোনেরা গ্রামের বাড়িতে বসবাস করছেন। আমার কয়েক বোন সিলেটে বিভিন্ন কলেজে লেখাপড়া করছে। বাড়িতে বেশীর ভাগ সময়ে বৃদ্ধা মাকে একাই থাকতে হয়। পিতার অনুপস্থিতিতে গ্রামের বাড়ির সহায় সম্পত্তি দখল করতে একের পর এক মামলা ও বসত বাড়িতে হামলা করছে। আর এসব ঘটনা ঘটাচ্ছেন আপন চাচারা এবং তাদের সন্তানরা।

আব্দুুল আজিজ আমার পিতা আব্দুল হান্নানকে বিদেশ পাঠানোর মধ্যে লুকিয়ে ছিলো তাদের ভূমি লিপ্সা। আর এর প্রমাণ আমরা এখন পাচ্ছি। কারণ আমার বাবার নামে পাসপোর্ট না করে আমার বাবার ছবি দিয়ে আব্দুল আজিজ নাম দিয়ে আব্দুল আজিজ তাঁর নামে পাসপোর্ট করে আমার বাবাকে বিদেশ পাঠান।

গত ২৬ মার্চ আমার মা সহ সকলকে বাড়িছাড়া করতে আমার বড় চাচা আব্দুল আজিজের হুকুমে অপর চাচা আব্দুল খালিক এবং তাদের সন্তানরা কয়েক সহযোগী নিয়ে আমাদের বসত ঘরে হামলা চালায়। এসময় আমার মা রাহেলা বেগম সহ আমার বোনেরা আহত হন। তাদেরকে হাসপাতালে নিয়ে যাবার পথে আমাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। থানায় নেয়ার পর জানায় আমরা নাকি তাদের উপর হামলা করেছি এবং এ ঘটনায় আমাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আমাদের বিরুদ্ধেই আমার চাচাতো ভাই লকুস মিয়ার স্ত্রী রাহেলা বেগম বাদী হয়ে ৩২(০৩)২০১৬ মামলা করেন। ১৮ দিন এ মিথ্যা মামলায় জেল খেটে জামিনে মুক্তি লাভ করি। এ মামলায় আমার মা বোনকেও আসামী করা হয়। তাদেরকেও মৌলভীবাজার আদালতে হাজির হয়ে জামিন নিতে হয়। এর চেয়ে দুঃখজনক আর কি হতে পারে।

আমার মা বাদী হয়ে ২৯ মার্চ মৌলভীবাজার আদালতে একটি মামলা (১৩৪/২০১৬) দায়ের করেন। ঘটনার পর থেকে  এরা আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। ফলে আমাদের জানমালের  নিরাপত্তা চেয়ে একই দিন আদালতে দরখাস্ত (৩৩/ ২০১৬) মামলা করি। এর পর থেকে তারা প্রতিনিয়ত আমাদেরকে প্রাণ নাশের হুমকী দিচ্ছে।

আমার মা, ভাই বোনদের ক্ষতি করার জন্য তারা আমাদের পেছনে সন্ত্রাসী লেলিয়ে দিয়েছে। যারা আমাদের তাড়া করছে প্রতি মুহুর্তে। ফলে আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি। আমাদেরকে একের পর এক মিথ্যা মামলায় আমাদের জর্জরিত করছে। আমাদের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগের সত্যতা পায়নি পুলিশ। একারণে তারা এখন থানায় মামলা করতে না পেরে আমাদের বিরুদ্ধে মৌলভীবাজারে আদালতে (৩৮/২০১৬) ও (১৫১/২০১৬) মামলা আছে। এছাড়া আরো কয়েকটি মামলা করেছে, মামলায় জড়ানোর হুমকী দিচ্ছে। এসব কারণে আমরা ভীত সন্ত্রস্থ হয়ে পড়েছি। প্রতি নিয়ত তারা হুমকী দিচ্ছে আমরা যাতে বাড়ি ছেড়ে চলে যাই। তারা আমাদের যৌথ সম্পত্তি বিক্রিও করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে সাহেদ আহমদ জানমালের জন্য হুমকী হয়ে উঠা আব্দুল আজিজ এবং তার সকল সহযোগীদরে গ্রেফতার করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকার এবং প্রশাসনের প্রতি দাবি জানান। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মনর আলী, রায়হান আহমদ, রুবি বেগম, মান্না বেগমসহ এলাকার লোকজন

Related Posts

Leave a Comment


cheap jerseyscheap jerseyscheap nfl jerseyscheap jerseys from chinacheap mlb jerseyscheap nhl jerseyscheap jerseyscheap nfl jerseyscheap mlb jerseyscheap nfl jerseys