Home ইসলাম ২১ সেপ্টেম্বর সিলেট থেকে রোডমার্চ রোহিঙ্গাদের রক্ষায়

২১ সেপ্টেম্বর সিলেট থেকে রোডমার্চ রোহিঙ্গাদের রক্ষায়

by jonoterdak24
0 comment

 p

নিজস্ব প্রতিবেদক :: মিয়ানমারে গণহত্যা বন্ধের দাবিতে আগামী ২১ ও ২২ সেপ্টেম্বর সিলেট থেকে বার্মা অভিমুখে রোডমার্চ করবে হিউমিনিটি ফর রোহিঙ্গা নামের একটি সংগঠন। রোডমার্চে হাজারখানেক যানবাহনে বিভিন্ন পেশা ও শ্রেণির সহস্রাধিক লোক অংশ নেবেন।

আন্তর্জাতিক মহলের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে এই রোডমার্চের কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। বুধবার সিলেট নগরীর একটি হোটেলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে কর্মসূচির ঘোষনা করেন সংগঠনের আহবায়ক সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট মাওলানা শাহীনূর পাশা চৌধুরী।

তিনি জানান, ২১ সেপ্টেম্বর সকাল ১০ টায় সিলেট নগরীর দক্ষিণ সুরমার হুমায়ুন রশীদ চত্তরে রোডমার্চের আনুষ্টানিক উদ্বোধন শেষে বার্মার অভিমুখে যাত্রা করা হবে। ২২ সেপ্টেম্বর বিকালে টেকনাফে সমাবেশের মাধ্যমে রোডমার্চ শেষ হবে। এর আগে হবিগঞ্জ, বি.বাড়িয়া, কুমিল্লা, চট্রগ্রাম ও কক্সবাজারে পথসভা করা হবে। এ ছাড়া রোডমার্চ সফলে ঢাকা, চট্রগ্রাম ও সিলেটে বিভাগীয় কমিটির মাধ্যমে ৩ সপ্তাহের কর্মসূচি পালন করা হবে।

শাহীনূর পাশা কর্মসূচি সফলে সিলেটবাসীসহ সকলের সহযোগিতা কামনা করে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বার্মার রোহিঙ্গাসহ ভিন্নধর্মী লোকদের উপর নির্যাতন, নিপিড়ন চলছে। বিশেষ করে রোহিঙ্গা মুসলমান নারী, পুরুষ ও শিশুদের টুকরোটুকরো করে ফেলা হচ্ছে। বৌদ্ধ সন্ত্রাসীদের জগন্য হত্যাযজ্ঞে কেউ চুপ করে বসে থাকতে পারে না।  গণহত্যার প্রতিবাদ করা প্রত্যেকের নৈতিক দায়িত্ব।

লিখিত বক্তব্যে শাহীনূর পাশা উল্লেখ করেন, মিয়ারমারের রাখাইন রাজ্য একসময় মুসলমানরা শাসন করেছে। আজ তারা ভিটেমাটি ছাড়া। আশ্রয়ের জন্য তারা ছুটছে। বিগত ২০০ বছর ধরে তাদের উপর চলছে নানা নির্যাতন। ১৭৮৪ সালে রাজা বোদাওয়াপায়া আরাকান দখল করে প্রথমবারের মত আরাকানদের উপর আক্রমন করেন। দ্বিতীয়বার মিয়ানমার দখল করে ব্রিটিশদের বিতারিত করলে ২২ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করে। তৃতীয়বার ১৯৭৮ সালে জেনারেল নে উইন অপারেশন ড্রাগন কিং নাম নিয়ে বিদেশিদের বাচাই করার নামে রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব বাতিল করেন। ওই সময় প্রায় ২ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করে। পরে তাদের ফেরত নিতে বাধ্য হয়।

সর্বশেষ ১৯৯১-৯২ সালে উত্তর রাখাইন এলাকায় মুসলমানদের দমনের উদ্যেশ্যে সামরিক উপস্থিতি বাড়িয়ে দেওয়া হয়। সেই থেকে অব্যাহত রয়েছে নির্যাতন নিপিড়ন। গত ২৪ আগষ্ট থেকে আবার মিয়ানমারের সেনা ও বৌদ্ধ সন্ত্রাসীরা মিলে শুরু করে গণহত্যা। নির্যাতন সহ্য না করতে পেরে রোহিঙ্গারা অনুপ্রবেশ করেছ বাংলাদেশে। সংবাদ সম্মেলনে মানবিক দিক বিবেচনা করে নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের আশ্রয় প্রদান এবং গনগহত্যা বন্ধে বিশ্বজনমত গড়ে তুলতে সরকারের প্রতি আহবান জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, রোডমার্চ বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়কারী মাওলানা মুহিউল ইসলাম বুরহান, সমন্বয়কারী মদন মোহন কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ আতাউর রহমান পীর, সুনামগঞ্জ জেলা সমন্বয়কারী মাওলানা শায়েখ আব্দুল বাছির, মাওলানা আব্দুল মালিক চৌধুরী, মাওলানা আলী নুর, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা তৈয়্যিবুর রহমান চৌধুরী, ইউরোপ জমিয়ত নেতা হাফিজ লোকমান আহমদ, মাওলানা মঞ্জুর আহমদ, মাওলানা মোহাম্মদ আলী, আবু বক্কর সরকার, কবির আহমদ খান, মুফতি মুতিউর রহমান, মাওলানা সালেহ আহমদ শাহবাগী প্রমুখ।

Related Posts

Leave a Comment


cheap jerseyscheap jerseyscheap nfl jerseyscheap jerseys from chinacheap mlb jerseyscheap nhl jerseyscheap jerseyscheap nfl jerseyscheap mlb jerseyscheap nfl jerseys